জাতীয়প্রবাস

টিকা না পেয়ে প্রবাসীকর্মীদের বিক্ষোভ!

টিকা না পেয়ে প্রবাসীকর্মীদের বিক্ষোভ!






ফাইজারের টিকা পাবেন এমন খবরে প্রবাসীকর্মীরা বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভিড় করেন। এসময় টিকা না পেয়ে বিক্ষোভ করেন তারা।



গতকাল (৩০ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, রাজধানী ঢাকার সাতটি হাসপাতালে প্রবাসীকর্মীদের ফাইজার বায়োএনটেকের টিকা দেওয়া হবে।



প্রবাসীকর্মীরা বলছেন, করোনার টিকা নিতে রেজিস্ট্রেশন (নিবন্ধন) করলেও তারা মোবাইলে এসএমএস পাননি। আবার অনেকে কিভাবে নিবন্ধন করতে হবে তা জানেন না।



স্বাস্থ্য অধিদফতর কেবল সৌদি আরব ও কুয়েত প্রবাসীদের এই টিকা দেওয়ার কথা জানালেও এদিন টিকাদান কেন্দ্রে ইতালি ও অন্যান্য দেশ থেকে বাংলাদেশে এসে আটকে পরা প্রবাসীরাও ভিড় করেন।



বিক্ষোভের পরে সেখানে উপস্থিত হয়ে প্রবাসীকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন।



তিনি বলেন, অ্যাপের মাধ্যমে প্রবাসীরা ভ্যাকসিন পেতে নিবন্ধন করতে পারবেন। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা নিয়েছি। সে ব্যবস্থার ছোট্ট একটা প্রতীকী উদ্বোধন হলো আজকে। এটা আমরা ৫-৭ জনকে দিয়ে করতে চেয়েছিলাম।



সচিব বলেন, আপনাদের আমরা বোঝাতে চাই যে‑ আমরা আপনাদের সঙ্গে আছি। এই মন্ত্রণালয় আপনাদের জন্য কাজ করছে এবং কাজ করার জন্য ভ্যাকসিনের এই সংকটের মধ্যেও এই উদ্যোগ নিয়েছি।



এ সময় প্রবাসীরা হট্টগোল শুরু করলে সচিব সবাইকে থামার অনুরোধ জানান।

তিনি বলেন, প্লিজ আপনারা থামেন। আমরা কেউ আপনাদের চেয়ে কম প্যানিকড (আতঙ্কগ্রস্ত) না। আপনারা সকলেই আমাদের সম্পদ। এই জিনিসটা শুধু আমরা মুখে বলি না, করিও।



এ সময় প্রবাসীদের আশ্বাস দিয়ে সচিব বলেন, এবার টিকার জন্য মাত্র চারটা সেকশনকে উদ্বোধন করা হয়েছে। এরমধ্যে পুলিশ, মেডিক্যাল ছাত্র আর তৃতীয়টি হচ্ছেন আপনারা। এটা করা হয়েছে শুধু আমাদের উদ্যোগে। আগামী সোমবার থেকে আপনারা সবাই অ্যাপে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

প্রবাসীকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনি যে অ্যাপে রেজিস্ট্রেশন করবেন, এটা কীভাবে করবেন? এটা কীভাবে বোঝা যাবে, যখন আপনার নামটি আমি সিস্টেমের মাধ্যমে ওইখানে পাঠাব। আমি আপনার নাম এখন লিখে নিলাম, হাতে হাতে এটা পৌঁছে দিলাম, এটা হবে না।



এরপরে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেন, অধের্য হলে কোনও সমাধান আসবে না। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ৭টা হসপিটালে ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা। কিন্তু সময় তো থাকতে হবে। ব্যবস্থাপনা করতে কিছুটা সময় দরকার।



তিনি বলেন, রবিবার বা সোমবারের দিকে ভ্যাকসিন নিবন্ধনের ব্যবস্থা হবে। সৌদি আরব ও কুয়েত ফাইজারের টিকার কথা বলছে। যাতে ১টা ডোজ নিলে সেদেশে গিয়ে বাকিটা নিতে পারে। ফাইজারের সিঙ্গেল ডোজ এখন কেবল কুর্মিটোলায় আছে।



তিনি আরও বলেন, সুরক্ষা অ্যাপ এখনও চালু হয়নি। রবিবার বা সোমবারের দিকে চালু হওয়ার কথা আপনারা জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো-বিএমইটিতে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে নিন। নাম আর পাসপোর্ট স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে চলে যাবে। সেখানে বলে দেওয়া হবে কে কোন হাসপাতালে ভ্যাকসিন নেবেন।



মন্ত্রী বলেন, আজকের ভ্যাকসিন যারা পাচ্ছে রিক্রুটিং এজেন্সি থেকেই পাচ্ছে‑ এটা ট্রায়াল। একটু ধৈর্য ধরেন, আজ-কালের মধ্যে সমাধান হয়ে যাবে। যাদের সময় শেষ কিংবা মেয়াদ নেই‑ সবাইকেই বিএমইটিতে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। তাদের রেজিস্ট্রেশন করে দেওয়া হবে মন্ত্রণালয় থেকে।



১ জুলাই ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রম শুরুর দিনে ফাইজারের ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, মুগদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল কেন্দ্রে।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button